মেঘবালিকা- bengali poetry




চেয়ে দেখ মেঘবালিকা , 
তোমার জন্য আজও অপেক্ষার 
প্রহর গুনি প্রতিদিন।
বাস্তবতার মলিনতা ধুয়ে আজও
দাঁড়িয়ে আছি তোমার 
প্রস্থান পথ চেয়ে।
মুগ্ধ হয়ে।
এক ফালি রোদ্দুরের আলগা পরশে
যখন তোমার মুখ সতেজতায় উজ্জ্বল।
সন্ধ্যাপ্রদীপের আলো যখন রাত্রির পূর্ণতায় ম্লান 
আমার কথার ছন্দপতন ঘটে
আমি অপলকে
শুধু  তোমায় দেখি।

তোমার চোখের পাতায় স্বপ্ন সাজাবার বৃথা চেষ্টায় 
আমি ডুবে যাই 
আসলে ডুবে যেতে চাই
একদম গভীরে , অতলে।
আমার স্বপ্নেরা বারবার গল্প পাল্টায়
তবুও চরিত্র একই থাকে।

মনখারাপের রাতে যখন ব্যালকনিতে তোমার 
আনমনা মুখ , 
হয়তো ঝিরিঝিরি বৃষ্টি পড়ছে অবিরাম 
জোলো হাওয়ায় ভিজেছে মন
নোনা জল গড়িয়ে পড়ছে চিবুক বেয়ে ,
ইচ্ছে করে , 
ইচ্ছে করে অনেক কিছুই,
ইচ্ছেগুলো কেবল গুমরে মরে প্রতিনিয়ত।

মেঘবালিকা , স্কুল বাস মিস করি
শুধু তোমায় দেখব বলে।
তোমার চঞ্চলতা, চুলের বিনুনি
আড়চোখের চাহনি 
মনের কোণে আলতোভাবে উঁকি দিয়ে যায়
একেই কি বলে ভালোবাসা?
তাহলে হয়তো আমি তোমায় ভালোবেসেছি

সেই সেদিন আমি শয্যাশায়ী
জ্বরের ঘোরে ভুল বকছি প্রতিনিয়ত
কলেজ ছুটির বাহানায় তুমি নিঝঝুম বাড়িতে একা
ছাদের চেনা সিঁড়ি ধরে পায়ে পায়ে
হাত ধরে কত কথা বলে গেলে অবিরত
কখনো বা চুপ, 
নোনা জল বাঁধ মানেনি সেদিন 
সুস্থ হওয়ার প্রতিবাদে প্রান  মন গর্জে ওঠে
তবুও শরীরে বাস্তবতার প্রতিচ্ছবি।

তিনমাস পর ,
ফুলের সুবাসে সুবাসিত ,
ধুনোর গন্ধে ম ম করছে চারিদিকে
একটা প্রদীপ জ্বলছে ঠিক আমার মাথার কাছে।
আমার ঠিক সামনেই বসে আছ তুমি ,
অবিন্যস্ত , এলোমেলো চুল ।
আমি তখন অনেক দূরের যাত্রী।
চেয়ে দেখ মেঘবালিকা
তবুও আমি তোমার অপেক্ষাতে
আজও , থাকব আজীবন।


Post a Comment

0 Comments