হাজার টাকা- Original Bengali Poerty

হাজার টাকা

হ্যাঁ, মাত্র হাজার টাকা।
কলেজে পড়ি আর পড়াই একটা বাচ্চা।
বাড়ি বর্ধমান।
স্বপ্নের শহর কোলকাতা।
ঘিঞ্জি গলির এক ছোট্ট মেসে
মাথা গোঁজার ঠাঁই করে নিয়েছি।
বাড়ি থেকে আর হাজার পাঠায় মাসে।
অদৃষ্ট হেঁসে বলে – চলে?
দীর্ঘনিঃশ্বাস ফেলে ,
খানিকক্ষন পরে বলি ,
চলে না,
চালাতে হয়।

সবার যেমন ইচ্ছে থাকে 
আমারও ছিল - ছবি আঁকার ইচ্ছে।
তুলির টানে ফুটবে ফুল
রঙে রঙিন হবে ক্যানভাস।
না,
আর ভাবতে পারছি না  আমি,
কারন ,
মাত্র হাজার টাকা‌।
হ্যাঁ মাত্র হাজার টাকা।
ইচ্ছেগুলো মরিচিকার মত
মিলিয়ে যায় , 
যেতে দিতে হয়।
lover

কলেজ ক্যান্টিনে চায়ের ধোঁয়ায়
দুবেলার ক্ষিদে ঢাকার চেষ্টায় ব্যস্ত আমি।
অপলকে তাকিয়ে ছিল ,
হ্যাঁ একটা মেয়ে।
সাদামাটা। শ্যামলা চেহারার।
শিহরিত হল মন ।
ভালো--বা-সা-টা   হল,
শুধু তাকে বলা হল না,
ভালোবাসি
কারন , ঐ একই
মাত্র হাজার টাকা।
হাজার টাকায় কি ওসব চলে?
চলে না ।

তেইশে সেপ্টেম্বর রমেশের বিয়ে
কলেজেরই বন্ধু,
ধনী পরিবারের একমাত্র ছেলে।
দামি গিফট এ ভরে উঠবে তার বাড়ি।
বাহারি ফুলে সাজানো হবে গাড়ি।
পরিপাটি হয়ে সেজে আসবে সবাই
আলোয় আলোকিত হবে সবকিছু।
পাঞ্জাবিতে ঠিক বুকের কাছে
দুটো বড় ফুটো হয়েছে,
রঙটাও চটে গেছে।
হয়তো ধারে কারো একটা —
কিন্তু গিফট?
আমার কাছে আর হাজার জমেছে
মাটির ব্যাংকে , খুচরো দু এক করে।
সিন্থেটিক বা হ্যান্ডলুম হবে এতে,
কিন্তু,
মানানসই হবে কি ?
হবে না  , হয় না।


উদীয়মান সূর্যের স্নিগ্ধতা নিয়ে ভোরের সূচনা হয়
এ এক অন্য ভোর
কাশফুলের শুভ্রতায় সাজানো প্রকৃতি,
শিউলি ফুলের সুবাসে সুবাসিত ভোর।
বাতাসে পুজোর গন্ধ।
গতবার, একটা শাড়ি আর পাঞ্জাবি পাঠিয়েছিলাম দেশে।
দুঘন্টা ঘুরে দরদাম করে কিনেছিলাম।
হয়তো সবাই বলবে সস্তা,
তবুও ওতেই খুঁজেছিলাম সুখ।
বাবা ভেবেছিল ,
ছেলে হয়তো চাকরি করছে
নয়তো পড়াশোনার পাশাপাশি কোন কাজ।
সে যে কাজই হোক
অত ছোট কাজ নয়,
নইলে কি আর পাঞ্জাবি , শাড়ি পাঠাতে পারত!
বাবার এই ধারণার কথা ফটিকের কাছ থেকে শুনেছিলাম।
এবার ভেবেছিলাম শাড়ি পাঞ্জাবির সঙ্গে
বাবার একটা ধুতি আর
মায়ের একজোড়া জুতো পাঠাবো।
কিন্তু  সঞ্চয়ের শেষ কড়িটি দেওয়ার পরও
 হাজারে কম পড়ছে।
পুজোর বাজারে কে দেবে ধার।
আমারই হার।
ঐ যে হাজার।
আশায় আশায় আবেগ স্বপ্ন সাজায়।
বাস্তবতার পলকা হাওয়ায় সব স্বপ্ন নিমেষে গুঁড়িয়ে যায়
বাস্তবতা বড় নির্মম , বড় নিষ্ঠুর।


Post a Comment

0 Comments